সিলেট ১০:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসলামপুর উপজেলায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটে হিট ষ্ট্রোকে লেয়ার মুরগীর মৃত্যুতে খামারীরা দিশেহারা

শরীফ মিয়া স্টাফ রিপোর্টার

জামালল পুর জেলার ইসলামপুর উপজেলায় অস্বাভাবিক তাপমাত্রায় হিট ষ্ট্রোকে মুরগীর মৃত্যুতে খামারীরা দিশেহারা। শনিবার দুপুরে ইসলামপুরে তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেঃ যেটা ফিলস লাইক ছিল ৫০ ডিগ্রী সেঃ।
পৌর শহরের বোয়ালমারী গ্রামে অবস্থিত জুনাইন সাইয়ারা পোল্ট্রি খামারে অতিরিক্ত তাপমাত্রায় প্রায় ২’ শ ডিমপাড়া মুরগী মারা যায়। ইসলামপুর সদর ইউনিয়নের ছানোয়ার হোসেন বাবলুর খামারে ৫০ টি ও পাথর্শী ইউনিয়নে সোহেলের লেয়ার খামারেও মুরগীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ইসলামপুর উপজেলায় শতাধিক ব্রয়লার ও সোনালী মুরগীর খামারেও অসংখ্য মুরগী মারা গিয়েছে।
খামারী ও ভেটেরিনারি কনসালট্যান্ট ডাঃ শফিকুর রহমান শিবলী জানান ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার উপরে তাপমাত্রা বিরাজ করলে মুরগীর মৃত্যু বেড়ে যায়। তারপরেও সকাল ৭ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত ইসলামপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘোষনা দিয়ে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ রাখে।
রাতেও আধা ঘন্টার জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিতরন বন্ধ ছিল।
ইসলামপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম আলীবর্দি খান সুজন জানান ৩৩ কেভি লাইনে মেরামত কাজ করায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বিদ্যুৎ বন্ধ ছিল।
পুষ্টির চাহিদা পূরনে খামারীগুলো অবদান রাখলেও সরকারী নজর থেকে খামারীরা বঞ্চিত অথচ ডিম ও মুরগীর দাম বাড়লে সরকার খামারীদের নানাভাবে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে বলে খামারী মুরাদ অভিযোগ করেন। বিদ্যুৎ বিভাগকে আরো বেশি পরিমান বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী করেন খামারীরা।

জনপ্রিয় সংবাদ

ইসলামপুর উপজেলায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটে হিট ষ্ট্রোকে লেয়ার মুরগীর মৃত্যুতে খামারীরা দিশেহারা

আপডেট সময় : ০২:২৪:১৯ অপরাহ্ণ, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

শরীফ মিয়া স্টাফ রিপোর্টার

জামালল পুর জেলার ইসলামপুর উপজেলায় অস্বাভাবিক তাপমাত্রায় হিট ষ্ট্রোকে মুরগীর মৃত্যুতে খামারীরা দিশেহারা। শনিবার দুপুরে ইসলামপুরে তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেঃ যেটা ফিলস লাইক ছিল ৫০ ডিগ্রী সেঃ।
পৌর শহরের বোয়ালমারী গ্রামে অবস্থিত জুনাইন সাইয়ারা পোল্ট্রি খামারে অতিরিক্ত তাপমাত্রায় প্রায় ২’ শ ডিমপাড়া মুরগী মারা যায়। ইসলামপুর সদর ইউনিয়নের ছানোয়ার হোসেন বাবলুর খামারে ৫০ টি ও পাথর্শী ইউনিয়নে সোহেলের লেয়ার খামারেও মুরগীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ইসলামপুর উপজেলায় শতাধিক ব্রয়লার ও সোনালী মুরগীর খামারেও অসংখ্য মুরগী মারা গিয়েছে।
খামারী ও ভেটেরিনারি কনসালট্যান্ট ডাঃ শফিকুর রহমান শিবলী জানান ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার উপরে তাপমাত্রা বিরাজ করলে মুরগীর মৃত্যু বেড়ে যায়। তারপরেও সকাল ৭ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত ইসলামপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘোষনা দিয়ে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ রাখে।
রাতেও আধা ঘন্টার জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিতরন বন্ধ ছিল।
ইসলামপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম আলীবর্দি খান সুজন জানান ৩৩ কেভি লাইনে মেরামত কাজ করায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বিদ্যুৎ বন্ধ ছিল।
পুষ্টির চাহিদা পূরনে খামারীগুলো অবদান রাখলেও সরকারী নজর থেকে খামারীরা বঞ্চিত অথচ ডিম ও মুরগীর দাম বাড়লে সরকার খামারীদের নানাভাবে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে বলে খামারী মুরাদ অভিযোগ করেন। বিদ্যুৎ বিভাগকে আরো বেশি পরিমান বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী করেন খামারীরা।