সিলেট ১০:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাঈমুল ইসলাম খান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব নিযুক্ত হওয়ায় আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিনের অভিনন্দন

——————————————————হাকিকুল ইসলাম খোকন.বাপসনিঊজঃদৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক এবং ইংরেজি ভাষার দৈনিক দ্য আওয়ার টাইমসের সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানকে ২৮ মে ২০২৪,এক চিঠিতেপ্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার প্রেস সচিব নিযুক্ত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবং দৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানকে এক বিরৃতিতে অভিনন্দন জানিয়েছেন আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হেলাল মাহমুদ । প্রকাশ ,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন প্রেস সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন দৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান। তিনি সচিব পদমর্যাদায় থেকে এ দায়িত্ব পালন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গত মঙ্গলবারের (২৮ মে ২০২৪) এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়।খবর বাপসনিউজ।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, ৭৮ হাজার টাকা নির্ধারিত বেতন ও সরকারি অন্যান্য সুবিধাদিসহ চুক্তিভিত্তিক এ নিয়োগ অনুমোদন হয়েছে।

এর আগে ২০১৫ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন বাসসের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক ইহসানুল করিম। তিনি ৭৩ বছর বয়সে গত ১০ মার্চ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব পদটি শূন্য হয়।

নাঈমুল ইসলাম খান ১৯৮২ সাল থেকে বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে সক্রিয় রয়েছেন। তিনি বর্তমানে দৈনিক আমাদের নতুন সময় এবং ইংরেজি ভাষার দৈনিক দ্য আওয়ার টাইমসের সম্পাদক। তিনি ১৯৯০ সালে দৈনিক আজকের কাগজ এবং কিছু পরে দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকা দুটি প্রকাশ করেন। ২০০৩ সালে তিনি দৈনিক আমাদের সময়ের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ২০০৭ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি টেলিভিশনে আলোচক হিসাবে ব্যাপকভাবে অংশগ্রহণ করেন।

নাঈমুল ইসলাম খান ২১ জানুয়ারি ১৯৫৮ সালে কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা নুরুল ইসলাম খান ছিলেন রাজনীতিবিদ ও আইনজীবী। তার মা নূরুন নাহার খানের ৬ সন্তানের মধ্যে তিনি বড়। কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

২০০৭ সালে তিনি সাংবাদিকতা ও মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে ঢাকাস্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে যোগ দেন। আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাসিমা খান মন্টি তার দাম্পত্য সঙ্গী।

সাংবাদিকতায় কর্মজীবন

নাঈমুল ইসলাম খান প্রথম ১৯৮২ সালে কয়েক মাসের জন্য প্রকাশিত মাসিক পত্রিকা ‘সময়’ সম্পাদনা করেন। পরবর্তীতে এটি খবরের কাগজ হিসেবে পরিবর্তন করা হয়। এ পত্রিকাটি ১৯৮৭ সালে সাপ্তাহিক হিসেবে শুরু হয়।

১৯৯০ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত সম্পাদক হিসাবে আজকের কাগজে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০২ সালে তিনি উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবে আজকের কাগজে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২০০৭ সালে এ পত্রিকাটি বন্ধ হয়ে যায়।

১৯৯২ সালে তিনি আরেকটি বাংলা ভাষার গণমাধ্যম দৈনিক ভোরের কাগজ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি দায়িত্ব ত্যাগ করার পর প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান পত্রিকাটির সম্পাদনার দায়িত্ব নেন। আজকের কাগজ ও ভোরের কাগজ একই সংবাদশৈলীতে প্রকাশ হতো।

১৯৯২ সালে ভোরের কাগজ থেকে পদত্যাগ করার পর নাঈমুল ইসলাম খান বাংলাদেশ সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট নামে একটি সংগঠন পরিচালনা করেন। ২০০৩ সালে তিনি নতুনধারা শিরোনামে আরেকটি দৈনিক প্রকাশের চেষ্টা করেন। ২০০৭ সালে তিনি দৈনিক আমাদের সময় সম্পাদনা শুরু করেন, কিন্তু ২০১২ সালে আদালতের আদেশে তার প্রকাশক পদ বাতিল হয়।

জনপ্রিয় সংবাদ

নাঈমুল ইসলাম খান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব নিযুক্ত হওয়ায় আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিনের অভিনন্দন

আপডেট সময় : ১২:৩১:০২ অপরাহ্ণ, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

——————————————————হাকিকুল ইসলাম খোকন.বাপসনিঊজঃদৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক এবং ইংরেজি ভাষার দৈনিক দ্য আওয়ার টাইমসের সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানকে ২৮ মে ২০২৪,এক চিঠিতেপ্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার প্রেস সচিব নিযুক্ত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবং দৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানকে এক বিরৃতিতে অভিনন্দন জানিয়েছেন আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হেলাল মাহমুদ । প্রকাশ ,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন প্রেস সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন দৈনিক আমাদের নতুন সময়ের এমেরিটাস সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান। তিনি সচিব পদমর্যাদায় থেকে এ দায়িত্ব পালন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গত মঙ্গলবারের (২৮ মে ২০২৪) এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়।খবর বাপসনিউজ।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, ৭৮ হাজার টাকা নির্ধারিত বেতন ও সরকারি অন্যান্য সুবিধাদিসহ চুক্তিভিত্তিক এ নিয়োগ অনুমোদন হয়েছে।

এর আগে ২০১৫ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন বাসসের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক ইহসানুল করিম। তিনি ৭৩ বছর বয়সে গত ১০ মার্চ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব পদটি শূন্য হয়।

নাঈমুল ইসলাম খান ১৯৮২ সাল থেকে বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে সক্রিয় রয়েছেন। তিনি বর্তমানে দৈনিক আমাদের নতুন সময় এবং ইংরেজি ভাষার দৈনিক দ্য আওয়ার টাইমসের সম্পাদক। তিনি ১৯৯০ সালে দৈনিক আজকের কাগজ এবং কিছু পরে দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকা দুটি প্রকাশ করেন। ২০০৩ সালে তিনি দৈনিক আমাদের সময়ের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ২০০৭ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি টেলিভিশনে আলোচক হিসাবে ব্যাপকভাবে অংশগ্রহণ করেন।

নাঈমুল ইসলাম খান ২১ জানুয়ারি ১৯৫৮ সালে কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা নুরুল ইসলাম খান ছিলেন রাজনীতিবিদ ও আইনজীবী। তার মা নূরুন নাহার খানের ৬ সন্তানের মধ্যে তিনি বড়। কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

২০০৭ সালে তিনি সাংবাদিকতা ও মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে ঢাকাস্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে যোগ দেন। আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাসিমা খান মন্টি তার দাম্পত্য সঙ্গী।

সাংবাদিকতায় কর্মজীবন

নাঈমুল ইসলাম খান প্রথম ১৯৮২ সালে কয়েক মাসের জন্য প্রকাশিত মাসিক পত্রিকা ‘সময়’ সম্পাদনা করেন। পরবর্তীতে এটি খবরের কাগজ হিসেবে পরিবর্তন করা হয়। এ পত্রিকাটি ১৯৮৭ সালে সাপ্তাহিক হিসেবে শুরু হয়।

১৯৯০ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত সম্পাদক হিসাবে আজকের কাগজে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০২ সালে তিনি উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবে আজকের কাগজে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২০০৭ সালে এ পত্রিকাটি বন্ধ হয়ে যায়।

১৯৯২ সালে তিনি আরেকটি বাংলা ভাষার গণমাধ্যম দৈনিক ভোরের কাগজ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি দায়িত্ব ত্যাগ করার পর প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান পত্রিকাটির সম্পাদনার দায়িত্ব নেন। আজকের কাগজ ও ভোরের কাগজ একই সংবাদশৈলীতে প্রকাশ হতো।

১৯৯২ সালে ভোরের কাগজ থেকে পদত্যাগ করার পর নাঈমুল ইসলাম খান বাংলাদেশ সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট নামে একটি সংগঠন পরিচালনা করেন। ২০০৩ সালে তিনি নতুনধারা শিরোনামে আরেকটি দৈনিক প্রকাশের চেষ্টা করেন। ২০০৭ সালে তিনি দৈনিক আমাদের সময় সম্পাদনা শুরু করেন, কিন্তু ২০১২ সালে আদালতের আদেশে তার প্রকাশক পদ বাতিল হয়।