সিলেট ১১:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলম্যান প্রয়াত পল ভ্যালনের স্মরণে ক্লিনটন ডেমোক্রেটিক ক্লাবের সভা Logo সু-শিক্ষাই হল আগামী ডিজিটাল বাংলাদেশ গঁড়ার মূল চালিকাশক্তি- শাবিপ্রবি অধ্যাপক ড. শাহ্ মোঃ আতিকুল হক Logo মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হুমায়ুন কবির হিরু মারা গেছেনপ্রয়ানে প্রবাসীদের শোক Logo সিলেটে তৃণমূল নারী  উদ্দ্যোক্তা সোসাইটির  সংবর্ধনা Logo নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে তৃণমূল নারীউদ্যোক্তা সোসাইটির খাদ্য সামগ্রী বিতরণ Logo ইসলামপুরে স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির উদ্যোগে বিদ্যালয় ভিত্তিক সচেতনমূলক সভা Logo “মৌলভীবাজার জেলার সাবেক ছাত্রলীগের রিইউনিয়ন কমিটি ইউকের সভা অনুষ্টিত, Logo “অর্গ্যানাইজেশন ফর দ্য রিকগনিশন অব বাংলার প্রেসিডেন্ট ও সাবেক রাষ্ট্রদূত ড.তোজাম্মেল টনি হক আর নেই,, বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ, Logo বিশ্ব মা দিবস-সব মায়েদের জন্য অফুরন্ত শ্রদ্ধা ও ভালবাসা Logo ড.এম এ ওয়াজেদ মিয়ার কর্ম জীবন থেকে অনেক শিক্ষনীয় আছে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক

দেশের সকল মা ও শিশুর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

হাকিকুল ইসলাম খোকন, , যুক্তরাষ্ট্র সিনিয়র প্রতিনিধি: জাতিসংঘ সদর দপ্তরে জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কমিশনের ৫৭তম অধিবেশনে প্রদত্ত ভাষণে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা: রোকেয়া সুলতানা বলেন- “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এবং জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কর্মসূচী বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে গৃহীত Programme of Action (ICPD PoA) বাস্তবায়নের মাধ্যমে সারা দেশের সকল মা ও শিশুর স্বাস্থ্য ও মঙ্গল নিশ্চিতকরনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।”খবর বাপসনিউজ ।

প্রদত্ত বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী ডা: রোকেয়া সুলতানা, মাতৃ ও নবজাতকের স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং কৈশোর স্বাস্থ্য ও কল্যাণ নিশ্চিতকরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গৃহীত নানাবিধ পদক্ষেপ ও কর্মসূচির কথা তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন “আমাদের দেশের প্রতিটি মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমরা ইউনিয়ন পর্যায়ে ৫৫০০টি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র স্থাপন করেছি এবং সার্বক্ষণিক পরিষেবা প্রদানের জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে ৪ জন করে ধাত্রী নিয়োগের পরিকল্পনা করছি। আগামী ২ বছরের মধ্যে ২০,০০০ ধাত্রী নিয়োগ করা সম্ভব হবে বলে আমি আশা প্রকাশ করছি”।

প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশে জাতীয় কৈশোর স্বাস্থ্যবিষয়ক কৌশলপত্র (২০১৭-২০৩০) এবং এর বাস্তবায়নে গৃহীত জাতীয় কর্মপরিকল্পনার বিষয়টি উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন, আমরা বাল্যবিবাহ এবং নারী ও কন্যা শিশুদের বিরুদ্ধে সংহিসতা রোধে কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া ৬ষ্ঠ থেকে ১২তম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত প্রায় ৫ মিলিয়ন কিশোরীদের সরকার বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলেও তিনি বক্তব্যে অবহিত করেন।

প্রতিমন্ত্রী মাতৃমৃত্যু ও জন্মহার হ্রাস, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থার ডিজিটালাইজেশন, ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মিদের সংখ্যা ও পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিসহ স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের বিভিন্ন অর্জন তুলে ধরেন। প্রতিমন্ত্রী উন্নয়নশীল দেশগুলোর সক্ষমতার ঘাটতি মেটাতে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও অংশীদারিত্ব বৃদ্ধিরও আহ্বান জানান।

মূল অধিবেশনের সাইড লাইনে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল-এর মাতৃমৃত্যু বিষয়ক সিগনেচার সাইড ইভেন্টে অংশগ্রহণ করেন মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, সেখানে তিনি দেশের প্রতিটি প্রান্তে পর্যাপ্ত ও প্রশিক্ষিত ধাত্রী নিয়োগের মাধ্যমে মাতৃমৃত্যু হ্রাসে বাংলাদেশের সাফল্য বর্ণনা করেন। এছাড়াও তিনি দক্ষিণ আফ্রিকা, ইউএনএফপিএ এবং পিপিডি আয়োজিত আইসিপিডি কর্মসূচী বাস্তবায়নে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতার গুরুত্ব বিষয়ক আরেকটি সাইড ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করেন। এইসকল আয়োজনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের ভাইস মিনিস্টার ফর ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন; ও ইউএনএফপিএ-এর এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের আঞ্চলিক প্রতিনিধির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন এবং নেদারল্যান্ডসের ভাইস মিনিস্টার কর্তৃক আয়োজিত আইসিপিডি-৩০ গ্লোবাল ডায়ালগ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠকে যোগ দেন।

২৯ এপ্রিল শুরু হওয়া জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কমিশনের ৫৭তম অধিবেশন আগামী ৩ মে শেষ হবে। “ICPD PoA বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা এবং এ সংক্রান্ত Decade of Action চলাকালে এজেন্ডা ২০৩০ এর অর্জন মূল্যায়ন ও টেকসই উন্নয়নে ICPD PoA এর ভূমিকা” হলো এই বছরের অধিবেশনের মূল প্রতিপাদ্য। উল্লেখ্য, ICPD POA-এর ৩০তম বার্ষিকী উদ্যাপনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ আগামী ১৫-১৬ মে ২০২৪ তারিখে ঢাকায় Demographic Diversity and Sustainable Development বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করছে। Bangladesh is committed to ensuring healthcare for all mothers and children in the country,” Dr. Rokeya Sultana, State Minister for Health and Family Welfare

Hakikul Islam Khokan,Senior Correspondedt:New York, 30 April 2024:

“Prime Minister Sheikh Hasina has been working relentlessly to ensure health and wellbeing of all mothers and children across the country by achieving SDGs and fulfilling the objectives of the landmark International Conference on Population and Development Programme of Action (ICPD PoA)” said Dr. Rokeya Sultana, State Minister for Health and Family Welfare at the 57th Session of the UN Commission on Population and Development, convened in New York from 29 April to 03 May.

The theme of this year’s session is assessing the status of implementation of the ICPD PoA and its contribution to the follow-up and review of the 2030 Agenda for Sustainable Development during the decade of action and delivery for sustainable development.

In her national statement, the state minister provided information on the initiatives taken by the Government of Prime Minister sheikh Hasina in the areas of maternal and neonatal health, family planning and adolescents health and wellbeing, among others. “To reach every mother and child of our country we have established 5500 Union- level health and family welfare centers. To provide 24/7 services, we are planning to deploy 4 midwives in each of those centers,” she added.

The state minister also referred to National Adolescent Health Strategy for 2017-2030 which is being implemented through a National Plan of Action. 20% of our population is youth, who are entering reproductive age every year. We have taken legal and policy measures to end child marriage and violence against women and girls. She also announced an initiative of the government to distribute free sanitary napkins to 5 million girls from 6th grade to 12th grade.

Hon’ble State Minister also highlighted the achievements of Bangladesh in reducing maternal mortality and birth rate, improving health governance and infrastructure including by developing digital health information system, enhancing the quality and quality of health professionals, among others.
In her statement, the state minister called upon the international community to address capacity gaps in developing countries through enhanced international cooperation and partnerships. The state minister also participated in UNFPA’s signature side event focusing on maternal mortality where she shared Bangladesh’s success story in reducing maternal morality by ensuring adequate and trained midwives in every corner of the country. She also participated in another side event organized by South Africa, UNFPA and PPD on South-South cooperation for implementation of ICPD Programme of Action.

The state minister held bilateral meeting with UK Vice Minister for Development Cooperation, Regional Representative of UNFPA for Asia Pacific and also attended a roundtable organized by Vice Minister of Netherlands on ICPD -30 global dialogues.

To mark the 30th anniversary of ICPD PoA Bangladesh is hosting a Global Dialogue on demographic diversity and sustainable development in Dhaka from 15- 16 May 2024.

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলম্যান প্রয়াত পল ভ্যালনের স্মরণে ক্লিনটন ডেমোক্রেটিক ক্লাবের সভা

দেশের সকল মা ও শিশুর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১২:২৭:৪৫ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ২ মে ২০২৪

হাকিকুল ইসলাম খোকন, , যুক্তরাষ্ট্র সিনিয়র প্রতিনিধি: জাতিসংঘ সদর দপ্তরে জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কমিশনের ৫৭তম অধিবেশনে প্রদত্ত ভাষণে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা: রোকেয়া সুলতানা বলেন- “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এবং জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কর্মসূচী বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে গৃহীত Programme of Action (ICPD PoA) বাস্তবায়নের মাধ্যমে সারা দেশের সকল মা ও শিশুর স্বাস্থ্য ও মঙ্গল নিশ্চিতকরনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।”খবর বাপসনিউজ ।

প্রদত্ত বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী ডা: রোকেয়া সুলতানা, মাতৃ ও নবজাতকের স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং কৈশোর স্বাস্থ্য ও কল্যাণ নিশ্চিতকরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গৃহীত নানাবিধ পদক্ষেপ ও কর্মসূচির কথা তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন “আমাদের দেশের প্রতিটি মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমরা ইউনিয়ন পর্যায়ে ৫৫০০টি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র স্থাপন করেছি এবং সার্বক্ষণিক পরিষেবা প্রদানের জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে ৪ জন করে ধাত্রী নিয়োগের পরিকল্পনা করছি। আগামী ২ বছরের মধ্যে ২০,০০০ ধাত্রী নিয়োগ করা সম্ভব হবে বলে আমি আশা প্রকাশ করছি”।

প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশে জাতীয় কৈশোর স্বাস্থ্যবিষয়ক কৌশলপত্র (২০১৭-২০৩০) এবং এর বাস্তবায়নে গৃহীত জাতীয় কর্মপরিকল্পনার বিষয়টি উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন, আমরা বাল্যবিবাহ এবং নারী ও কন্যা শিশুদের বিরুদ্ধে সংহিসতা রোধে কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া ৬ষ্ঠ থেকে ১২তম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত প্রায় ৫ মিলিয়ন কিশোরীদের সরকার বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলেও তিনি বক্তব্যে অবহিত করেন।

প্রতিমন্ত্রী মাতৃমৃত্যু ও জন্মহার হ্রাস, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থার ডিজিটালাইজেশন, ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মিদের সংখ্যা ও পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিসহ স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের বিভিন্ন অর্জন তুলে ধরেন। প্রতিমন্ত্রী উন্নয়নশীল দেশগুলোর সক্ষমতার ঘাটতি মেটাতে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও অংশীদারিত্ব বৃদ্ধিরও আহ্বান জানান।

মূল অধিবেশনের সাইড লাইনে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল-এর মাতৃমৃত্যু বিষয়ক সিগনেচার সাইড ইভেন্টে অংশগ্রহণ করেন মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, সেখানে তিনি দেশের প্রতিটি প্রান্তে পর্যাপ্ত ও প্রশিক্ষিত ধাত্রী নিয়োগের মাধ্যমে মাতৃমৃত্যু হ্রাসে বাংলাদেশের সাফল্য বর্ণনা করেন। এছাড়াও তিনি দক্ষিণ আফ্রিকা, ইউএনএফপিএ এবং পিপিডি আয়োজিত আইসিপিডি কর্মসূচী বাস্তবায়নে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতার গুরুত্ব বিষয়ক আরেকটি সাইড ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করেন। এইসকল আয়োজনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের ভাইস মিনিস্টার ফর ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন; ও ইউএনএফপিএ-এর এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের আঞ্চলিক প্রতিনিধির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন এবং নেদারল্যান্ডসের ভাইস মিনিস্টার কর্তৃক আয়োজিত আইসিপিডি-৩০ গ্লোবাল ডায়ালগ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠকে যোগ দেন।

২৯ এপ্রিল শুরু হওয়া জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কমিশনের ৫৭তম অধিবেশন আগামী ৩ মে শেষ হবে। “ICPD PoA বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা এবং এ সংক্রান্ত Decade of Action চলাকালে এজেন্ডা ২০৩০ এর অর্জন মূল্যায়ন ও টেকসই উন্নয়নে ICPD PoA এর ভূমিকা” হলো এই বছরের অধিবেশনের মূল প্রতিপাদ্য। উল্লেখ্য, ICPD POA-এর ৩০তম বার্ষিকী উদ্যাপনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ আগামী ১৫-১৬ মে ২০২৪ তারিখে ঢাকায় Demographic Diversity and Sustainable Development বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করছে। Bangladesh is committed to ensuring healthcare for all mothers and children in the country,” Dr. Rokeya Sultana, State Minister for Health and Family Welfare

Hakikul Islam Khokan,Senior Correspondedt:New York, 30 April 2024:

“Prime Minister Sheikh Hasina has been working relentlessly to ensure health and wellbeing of all mothers and children across the country by achieving SDGs and fulfilling the objectives of the landmark International Conference on Population and Development Programme of Action (ICPD PoA)” said Dr. Rokeya Sultana, State Minister for Health and Family Welfare at the 57th Session of the UN Commission on Population and Development, convened in New York from 29 April to 03 May.

The theme of this year’s session is assessing the status of implementation of the ICPD PoA and its contribution to the follow-up and review of the 2030 Agenda for Sustainable Development during the decade of action and delivery for sustainable development.

In her national statement, the state minister provided information on the initiatives taken by the Government of Prime Minister sheikh Hasina in the areas of maternal and neonatal health, family planning and adolescents health and wellbeing, among others. “To reach every mother and child of our country we have established 5500 Union- level health and family welfare centers. To provide 24/7 services, we are planning to deploy 4 midwives in each of those centers,” she added.

The state minister also referred to National Adolescent Health Strategy for 2017-2030 which is being implemented through a National Plan of Action. 20% of our population is youth, who are entering reproductive age every year. We have taken legal and policy measures to end child marriage and violence against women and girls. She also announced an initiative of the government to distribute free sanitary napkins to 5 million girls from 6th grade to 12th grade.

Hon’ble State Minister also highlighted the achievements of Bangladesh in reducing maternal mortality and birth rate, improving health governance and infrastructure including by developing digital health information system, enhancing the quality and quality of health professionals, among others.
In her statement, the state minister called upon the international community to address capacity gaps in developing countries through enhanced international cooperation and partnerships. The state minister also participated in UNFPA’s signature side event focusing on maternal mortality where she shared Bangladesh’s success story in reducing maternal morality by ensuring adequate and trained midwives in every corner of the country. She also participated in another side event organized by South Africa, UNFPA and PPD on South-South cooperation for implementation of ICPD Programme of Action.

The state minister held bilateral meeting with UK Vice Minister for Development Cooperation, Regional Representative of UNFPA for Asia Pacific and also attended a roundtable organized by Vice Minister of Netherlands on ICPD -30 global dialogues.

To mark the 30th anniversary of ICPD PoA Bangladesh is hosting a Global Dialogue on demographic diversity and sustainable development in Dhaka from 15- 16 May 2024.